চলতি হাওয়া

রতিক্রিয়ায় ফেরত পুরনো প্রেম

সৌম্য পাকড়াশি
কলকাতা,২৭ ডিসেম্বর ২০১২

sexual relation

সেক্স হয়ে উঠছে সম্পর্কের অপরিহার্য অঙ্গ। ছবি- নিজস্ব চিত্র।

সম্পর্কের টানাপোড়েন বড্ড জটিল ব্যাপার। বছর বছরের প্রেম এক মুহূর্তে শেষ হয়ে যায়, আবার এক বছরের প্রেমের পরিণতি হতে পারে বিয়ে। পুরোটাই আসলে নির্ভরশীল সম্পর্কে থাকা দুটি মানুষের উপর। কিন্তু জেন-ওয়াই এর কাছে বিয়েটা বড্ড সেকেলে। তারা লিভ-ইনে ভর করে সম্পর্কটা আগে খুব কাছ থেকে বুঝে নিতে চায়। একটা সময় ছিল যখন বিয়ে নামক ইন্সটিটিউশনে আবদ্ধ না হয়ে শারীরিক সম্পর্কে যাওয়াকে অপরাধের চোখে দেখা হত। আর এখন! চুমু থেকে অর্গাজম হয়ে উঠেছে সম্পর্কের সর্বস্ব। ফ্যামিলি প্ল্যানিং তো নৈব নৈব চ। প্রেমিকের বুকের তিল বা প্রেমিকার কোমরের জরুল একে অপরের কাছে দুজনের মনের কথার মতোই সমান পরিচিত। আসলে ইয়ং-বং সম্পর্কে খুঁজে পাচ্ছে সারল্যের আস্বাদ। যদি সম্পর্কের স্বাভাবিকতায় শারীরিক দূরত্ব কমে তাতে ক্ষতি কি! সেক্স এখন আর নিষিদ্ধতার আগলে বাঁধা নেই, বরং ওটা আন্ডারস্ট্যান্ডিং বাড়ানোর একটি গুরত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া।
 
সম্পর্কের সরলীকরণের ধারণা থেকেই সেক্স হয়ে উঠছে সম্পর্কের অপরিহার্য অঙ্গ। কিন্তু সম্পর্কের শেষে? বুঝলেন না তো? আরে যদি সম্পর্কটা ভেঙে যায়? হঠাৎ যদি শেষ হয়ে যায় সমস্ত গভীরতা? তখন? তখন কী করণীয়? যদি ভেবে থাকেন পুরুষটি বার-এ গিয়ে মদ্যপানে লিপ্ত হবেন আর মহিলা ঘরের এক কোণে বসে হাঁটুতে মুখ গুজে দুঃখের গান শুনবেন- তাহলে খুব ভুল করছেন। এসব আমরা বলছি না, বলছে একটি সোশ্যাল সাইটের সমীক্ষা।প্রশ্ন রাখা হয়েছিল, আপনার প্রেমিক বা প্রেমিকা আপনাকে ছেড়ে চলে গেলে কী করবেন? অনেকগুলো অপশন রাখা হয়েছিল উত্তরের জন্যে। যার মধ্যে মদ্যপান করবেন, অনলাইন ফ্লার্ট করবেন বা হঠাৎ কোনও এক নাইট আউটে অপরিচিত কাউকে ঝারি মারবেন-এর মত অপশনের সঙ্গে সঙ্গে ছিল আরও একটি বেশ গন্ডগোলের অপশন। কী সেটি? সেটি ছিল আরও একবার আপনার এক্স-এর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হবেন। আর অবিশ্বাস্যভাবে সবথেকে বেশিসংখ্যক রায় এল এই শেষ অপশনটির পক্ষে!
 
সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ জয় মদন অবশ্য মনে করছেন, এরকম ভাবনাচিন্তা জেন-ওয়াইদের পক্ষে খুবই স্বাভাবিক।তাঁর মতে আসলে একটা সম্পর্ক থেকে হঠাৎ করে বেরিয়ে আসা খুব কষ্টের। তাই তার চেয়ে যদি আপনার সত্যিই ইচ্ছে থেকে থাকে নিজের পুরনো সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে দৈনন্দিন জীবনে ফিরে পেতে, তাহলে রতিক্রিয়াই সবচেয়ে উপযুক্ত উপায়। কারণ পরস্পরের শরীরের চেনা স্পর্শ আবার হয়তো আপনাকে ফিরিয়ে দিতে পারে আপনার হারিয়ে যাওয়া মানসিক শান্তি। উক্ত সমীক্ষায় প্রায় ১০০০জন নারী-পুরুষ তাঁদের হারিয়ে যাওয়া আবার ফিরে পেতে চেয়েছেন নতুন রূপে, রতিক্রিয়ার মাধ্যমে। এঁদের মধ্যে ৩১ শতাংশ বলছেন সম্পর্কের পুরনো উষ্ণতা ফিরে পেতে এমনটা করতে চান! আর ৪৩ শতাংশ মহিলা তো সরাসরি স্বীকার করছেন যে, তাঁরা সাম্প্রতিক সময়ে নিয়মিত ভাবে তাদের প্রাক্তন সঙ্গীর সঙ্গে রতিক্রিয়ায় লিপ্ত।

একই বক্তব্য ৪৭ শতাংশ পুরুষেরও। জয় এক্ষেত্রে উদাহরণ স্বরূপ হলিউডি তারকা ডেমি ম্যুর ও অ্যাশটন কুচার এর কথাও বললেন। বললেন, তাঁরা যে ডিভোর্সের পরেও আবার তাঁদের পুরনো সম্পর্ককে নতুন করে ফিরে পেয়েছেন, তাতে শারীরিক সম্পর্কের একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। আসলে শারীরিক সম্পর্ক তো আমাদের মানসিক বোঝাপড়ার একটি ব্যক্তিগত আঙ্গিক, তাই সেই মানসিক বোঝাপড়া যদি হারিয়ে যাওয়ার পরেও শারীরিক ঘনিষ্ঠতার মাধ্যমে আবার নতুন করে নতুন মোড়কে ফিরে আসে, তাতে ক্ষতি কি!

অন্যরা যা পড়ছেন

এই বিষয়ে আরও

জনপ্রিয়

সমস্ত ভিডিও