বইপাড়া

রবীন্দ্রনাথ/ হস্তলিপির বিচার ও বিশ্লেষণ

লেখক - মোহন বোস, প্রকাশক - আনন্দ, দাম - ১০০.০০

আশিস পাঠক
কলকাতা, ১৭ মে ২০১২

Handwriting

বিদ্যেটার নাম গ্রাফোলজি৷ ছবি- আশিস পাঠক

হাতের লেখায় চেনা যায় মানুষের মন৷ সেই চেনার বিদ্যেটার নাম গ্রাফোলজি৷ কিন্তু কবির মন, তাও আবার রবীন্দ্রনাথের? না, রবীন্দ্রনাথ কী খেতেন, কী পরতেন, তাঁর কবিতার মালীরা কোন ধরনের নিড়ুনি দিয়ে ঘাস ছাঁটতেন ইত্যাকার জ্ঞানগর্ভ গবেষণায় শতবর্ষ কেটে গেলেও তাঁর হাতের লেখা নিয়ে তেমন কোনও চর্চা এত কাল পাইনি আমরা৷

অথচ, পাওয়া উচিত ছিল৷ বাঙালির একটি যুগের হাতের লেখার ছাঁদটি তৈরি করে দিয়েছিল যাঁর হাতের লেখা, যাঁর লেখার হাতে আজও বাঙালি মুগ্ধ তাঁর হাতের লেখাকে গ্রাফোলজির তত্ত্ব মেনে বিচার করার সুযোগ ছিল৷ সুযোগ বলছি এই কারণে যে বাঙালি সাহিত্যিকদের মধ্যে একমাত্র রবীন্দ্রনাথই বোধ হয় সবচেয়ে সংরক্ষিত৷ তাঁর পাণ্ডুলিপি যে পরিমাণে এবং যত্নে সংরক্ষিত হয়েছে এমন হয়নি আর কারও৷

বস্তুত সেই সংরক্ষণের প্রাচুর্যটাই গ্রাফোলজি-র প্রেক্ষিতে রবীন্দ্রনাথের হাতের লেখা বিচারে সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ৷ কারণ একে কবিটির নাম রবীন্দ্রনাথ, যিনি বারে বারে বদলেছেন নিজেকে, বদলেছেন বলেই পদে পদে গ্রাফোলজিস্টের পথ ভোলার সম্ভাবনা বেশি৷

মোহন বোস পথ ভোলেননি৷ তিনি প্রথাগত রবীন্দ্র-গবেষক নন৷ রবীন্দ্রনাথের হস্তলিপির বিচার ও বিশ্লেষণ তাই তাঁর কলমে সাহিত্যের গবেষণার ধারায় আসেনি, এসেছে বিজ্ঞানের ভিত্তিতে৷ রবীন্দ্রনাথের ইংরেজি স্বাক্ষর থেকে তার অক্ষরের গঠন বিচার করে রবীন্দ্রনাথের ব্যক্তিত্ববৈশিষ্ট্য অনুমান করেছেন তিনি৷ এমনকী পাতার কোন দিকে সই করতেন তিনি, তা থেকেও অনুমান করা যায় তাঁর মনন-বৈশিষ্ট্য৷ মোহনবাবু লিখছেন, ‘চিঠিপত্রে দেখা যায় কবি পাতার ডানদিকে সই করেন, এর বৈশিষ্ট্য হল ছোটবেলা থেকে বড় হয়ে ওঠার সময়কালে তিনি যে সামাজিক শিক্ষা পেয়েছেন সে অনুযায়ী বড় বয়সে তিনি ঘটনা, দেশ-কাল-মানুষের সম্মুখীন হতে ভয় পাননি৷ অচেনা অজানাকে জানার আগ্রহ ছিল৷ জীবনে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতেন৷ পরাজয় তাঁকে কষ্ট দিয়েছে কিন্তু কখনও ভেঙে হতাশাগ্রস্ত করে বসিয়ে দেয়নি৷’

অভিনব এই বই৷ লেখার ছন্দ, সংযোজনকারী রেখা, বর্ণমালার রচনাশৈলী, লেখার লাইনের গতিপথ, দুই শব্দের মধ্যবর্তী ব্যবধান, ঘন দাগে লেখা, লেখার প্রান্তরেখা, বড় হাতের অক্ষরের ব্যবহার ইত্যাদি নানা দৃষ্টিকোণ থেকে রবীন্দ্রনাথের হাতের লেখার বিশ্লেষণ করেছেন লেখক৷ সে বিশ্লেষণের সঙ্গে অন্য কোনও হস্তলিপিবিশারদ একমত না হতেই পারেন, কিন্তু সত্যিই যে রবীন্দ্র-গবেষণার একটি নতুন সম্ভাবনা জাগিয়ে দিল এই বই সে কথা বোধহয় অস্বীকার করার উপায় নেই৷
 

জনপ্রিয়

সমস্ত ভিডিও

বর্ধমানে তরুণীর উপর অ্যাসিড হামলা

এবিপি আনন্দ

দেখেছেন 1 জন

কালো টাকা নিয়ে জেটলি যা বললেন

এবিপি আনন্দ

দেখেছেন 0 জন

দেব-শ্রাবন্তীর বিন্দাস প্রেম

শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস্

দেখেছেন 0 জন

তাপস পাল লোফার নন, ল' মেকার

এবিপি আনন্দ।

দেখেছেন 0 জন