বইপাড়া

সন্দেশ তৃতীয় বর্ষ

সম্পাদক - উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরি ও সুকুমার রায়, প্রকাশক - পারুল, দাম - ৪০০.০০

আশিস পাঠক
কলকাতা, ২৯ মার্চ ২০১২

sandesh

আর্শ্চর্য মলাট আর ভিতরকার মনোহরণ রঙিন ছবি। ছবি- গ্রাফিক্স।

’ছোটদের আশার হরিণকে দিগন্তের দিকে ছুটিয়ে দিয়ে মাসে-মাসে আসতো ‘সন্দেশ’,আসতো তার আর্শ্চর্য মলাট আর ভিতরকার মনোহরণ রঙিন ছবি নিয়ে, আনতো দুটি মলাটের মধ্যে সাহিত্যের বিচিত্র ভোজে উজ্জ্বল পাইকা অক্ষরের পরিবেষন।' লিখেছিলেন বুদ্ধদেব বসু৷ সে তাঁর ছেলেবেলার কথা৷ সেই ছেলেবেলায় আসত উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর সম্পাদিত সন্দেশ৷ কিন্তু তার পরে আরও কয়েক বার সন্দেশ পত্রিকা প্রকাশিত হয়েছে৷ সুকুমার রায় এবং সতজিত্ রায় ও সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের সম্পাদনায়৷ তারও পরে সন্দীপ রায় সম্পাদনা করেছেন সন্দেশ৷ কিন্তু বাংলা ছোটদের পত্রিকার ইতিহাসে সন্দেশ-এর ভূমিকা কী? বিষয়টি আর এক বার সামনে এল উপেন্দ্রকিশোর ও সুকুমার---দুই রায়েরই সন্দেশ নতুন করে সুলভ হওয়ায়৷ বাংলা বইপাড়ায় আবার মিলছে সেই আশ্চর্য সন্দেশ, সেই মনোহরণ রঙিন ছবি আর আশ্চর্য মলাট নিয়েই৷ সন্দেশটি আকর্ষণীয়, সন্দেহ নেই৷

উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর সম্পাদনায় ’ছেলেমেয়েদের সচিত্র মাসিক পত্রিকা' সন্দেশ প্রথম প্রকাশিত হয় ১৩২০ বঙ্গাব্দে, অর্থাত্ ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দে৷ পত্রিকাটির উপশিরোনাম ছিল ছেলেমেয়েদের সচিত্র মাসিক পত্রিকা৷ এখানে ছেলেমেয়েদের শব্দটি তাত্পর্যপূর্ণ৷ বস্তুত সন্দেশ যে কোথায় বাংলা ছোটদের পত্রিকার ইতিহাসের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল তার ইঙ্গিত আছে ওই শব্দটিতে৷ এর আগে সেই ১৮১৮ থেকে ছোটদের পত্রিকা নিয়ে নাড়াচাড়া শুরু হয়েছিল৷ কিন্তু সন্দেশের আগে পর্যন্ত ছোটদের পত্রিকা আসলে ছোটদের ছিল না৷ তা ছিল অধিকাংশত ছোটদের নীতিশিক্ষা দেওয়ার জন্য বড়দের হাতে তুলে দেওয়ার পত্রিকা৷ অর্থাত্ তার বেশির ভাগটাই উপকারী, মনোরঞ্জক নয়৷ উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরী প্রথম ছোটদের আনন্দ দেওয়ার জন্য পত্রিকা চালু করলেন৷ শুধু আনন্দই নয়, আনন্দের মহাভোজ৷ রঙিন ছবি, মজার গল্প, এমনকী বিজ্ঞানের তথ্যও যখন সন্দেশে গল্পের আকারে প্রকাশিত হয়েছে তখন তা গল্পেরই আকারে প্রকাশিত হয়েছে, গল্পের ছলে নয়৷ সেই আশার হরিণকে দিগন্তের দিকে ছোটানো উপেন্দ্রকিশোরের সন্দেশ দুর্লভ হয়ে গিয়েছিল অনেক দিন৷

পত্রিকার প্রথম থেকে সবকটি সংখ্যা অবিকল সেই ভাবেই খণ্ডে খণ্ডে প্রকাশ করে একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কাজ সম্পন্ন করছে পারুল প্রকাশনী, বলতেই হয়৷ ১৩২০ থেকে প্রতি বছরের সন্দেশ-এর সবকটি সংখ্যা পরপর এক একটি খণ্ডে প্রকাশ করছে তারা৷ এখনও পর্যন্ত প্রকাশিত হয়েছে তিনটি বছর৷ সেই প্রথম প্রকাশিত গুপী গাইন, কিংবা সুকুমার রায়ের অনেক কবিতা-গল্প সেই প্রথম অলংকরণের সঙ্গে পড়তে পাওয়ার সুোগ সত্যই অবিস্মরণীয়৷

অন্যরা যা পড়ছেন

এই বিষয়ে আরও

জনপ্রিয়